আমলা: কিছু বিচ্ছিন্ন স্মৃতি


নানান প্রয়োজনে আমলাদের সঙ্গে উঠাবসা করতে হয়েছে। তাদের দপ্তরে যেতে হয়েছে। আবার যখন সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। এমনিতেই গিয়েছি। স্রেফ আড্ডা দিতে। কখনো তাদের দপ্তরে। কখনো বাসায়। এখানে কিছু স্মৃতিচারণ করছি।

‘কাজের আবার সময় কি?’

ডুমুরিয়ার ইউএনও সাহেব দেখা করার সময় দিয়েছেন সন্ধ্যা ৭টা। ফোনে সময়টা শুনে অবাক হয়নি। কারণ এর আগেও এমন সময়ে ইউএনও সাহেবদের সঙ্গে দেখা করেছি। অফিস থেকে বাসায় ফিরে বিকেলটা আয়েশ করার পর সন্ধ্যার দিকে তারা ঘণ্টাখানেক স্থানীয় লোকজন কিংবা আমার মতো বাইরে থেকে আসা মানুষজনকে সময় দেন। এসময়টা তারা বাসায় থাকেন। উপজেলায় ইউএনও সাহেবদের সরকারি বাসাগুলো একটু বড়ই হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ডুপ্লেক্স বাড়ি। একই পদমর্যাদার অফিসার ঢাকার বেইলি রোডে আড়াই রুমের বাসায় থাকলেও উপজেলায় তাদের বাড়ির ড্রয়িংরুমটাই বেইলি রোডের ফ্লাটের সমান হয়। ডাইনিং রুম ছাড়াও বাড়তি রুম থাকে।  বাসার ড্রয়িংরুম সংলগ্ন কোন একটি রুমে কিংবা ড্রয়িংরুমে তারা এসময়টায় অতিথিদের নিয়ে বসেন। কিন্তু ডুমুরিয়ার ইউএনও সাহেবকে জিজ্ঞাসা করিনি কোথায় যাব। কারণ আমি মনে মনে ধরে নিয়েছি বাসায় যাব। আর ইউএনও সাহেব ধরেই নিয়েছিলেন যে তার অফিসে যাব। ফলে বাসায় গিয়ে শুনতে হলো স্যার তো অফিসে। অফিসে গিয়ে সেই সন্ধ্যা সাতটার সময়ও শুনতে হলো একটু বসতে হবে।

ইউএনও সাহেব বলেছিলেন, ‘আমরা তো সরকারি চাকরি করি। ফুলটাইম কাজ করি। আমাদের আবার কাজের সময় কি?’ অনেকদিন ডুমুরিয়াতে ছিলাম। ইউএনও সাহেবকে দেখেছি সময় দিয়ে কখনো মিস করেননি।

 

সময় বেঁধে কাজ করে জঞ্জাল সাফ করা যায় না

একটা অধিদপ্তরের ডিজি সাহেবে বলেছিলেন কথাগুলো। তাঁর ওখানে আমার যাতায়াত কিছুটা ঘন ঘন ছিল। অনেকটা জোর করেই আমি সময় নিতাম। তিনি আমাকে বলতেন হয় ৯ টার আগে আসতে হবে নতুবা ৫ টার পর। দু’টোর কোনটাই অফিস আওয়ার নয়। যাই হোক, আমি যেতাম ৫ টার পর। উনি কখনো ৭টা কখনো ৮ পর্যন্ত অফিস করতেন। কি এতো করেন জিজ্ঞাসা করায় একবার বলেছিলেন, ‘জঞ্জাল সাফ করি।’ উনিই আমাকে তিন বছর ওই পদে কাজ করার পর বলেছিলেন, সময় বেঁধে কাজ না করার পরও জঞ্জাল সাফ করতে পারিনি। কারণ সিস্টেমের মধ্যে একবার জঞ্জাল তৈরি হলে পুরোপুরি কখনো সাফ করা যায় না। অবসর গ্রহণ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় আর সতর্ক থাকতে হয় নতুন করে যেন জঞ্জাল ঢুকতে না পারে।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s