আপনার চেনা ভালো মানুষকে পরিচয় করিয়ে দিন


আপনি কয়জন ভালো মানুষকে চেনেন? হ্যা আপনাকেই জিজ্ঞাসা করছি। চট করে জবাব দেওয়ার দরকার নেই। চিন্তা করে বলুন। তার আগে নিশ্চয়ই আপনি জানতে চাইবেন, ভালো মানুষ কাকে বলবেন? আমাকে যদি জিজ্ঞাসা করেন জবাবটা এমন:

যে মানুষের কথায় ও কাজে মিল আছে।

যদি বলেন আরেকটু খুলে বলতে। জবাবটা এমন:

যে মানুষের অন্তর পরিস্কার। এখন কথা হলো অন্তর কিভাবে দেখবেন? খুব কঠিন কিছু নয়। একজন মানুষের সঙ্গে দীর্ঘদিন উঠাবসা করলে তার অন্তর বোঝা যায়। যার অন্তর পরিস্কার তারা মিথ্যা বলে না। তারা লোভী নয়। তারা মানুষকে মানুষ বলে গণ্য করে। তারা মনে করে দুনিয়াতে সে একটা দায়িত্ব পালনের জন্য এসেছে। তার চাওয়া পাওয়ার পরিধিটা ওই দায়িত্ব পালনের নিরিখেই সে নির্ধারণ করে। কঠিন মনে হচ্ছে কি? খুলে বলি।

ধরুন, আপনি একজন মন্ত্রী। একজন মন্ত্রীকে তার দপ্তরে যেতে হয়। সেকারণে তার একটি গাড়ি দরকার। তার ছেলেমেয়েকে স্কুলে কলেজে যেতে হতে পারে। তার স্ত্রীকে বাইরে যেতে হয়। ফলে তার বাসার জন্য একটি গাড়ি দরকার। এটা এমন হতে পারে যে, দপ্তরের গাড়িটি তাকে অফিসে পৌঁছে দিয়ে বাকি সময় বাড়ির দায়িত্ব পালন করল। কিংবা এটি এমন হতে পারে যে, বাড়ির সদস্যদের জন্য আরেকটি গাড়ি থাকল। আর মন্ত্রী মহোদয়কে অফিসে আনা নেওয়ার জন্য অফিসের গাড়ি ব্যবহার করা হলো। ব্যবস্থাটা এমন হতে হবে যে, মন্ত্রী মহোদয়কে যেন বাড়ির সদস্যদের চলাফেরা করার বিষয়টি নিয়ে সময় দিতে না হয়। কারণ তাতে তার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন বাধা পাবে। এখন এই গাড়িটি কি গাড়ি হবে? এটি যেহেতু রাষ্ট্রের অর্থে কেনা হবে মানে জনগণের অর্থে সেহেতু এটি খুব দামী কিছু হবে না। কিন্তু এটি এমন হবে যে, পথের মাঝে নষ্ট হয়ে যাবে না।

একজন মন্ত্রীর কাজের সুবিধার জন্য তার একটি ল্যাপটপ দরকার হতে পারে। একটি মোবাইল ফোন থাকা দরকার। মন্ত্রী যদি শুধুমাত্র কল রিসিভ এবং মেসেজ পাঠান তার জন্য সাধারণ মানের একটি ফোন হতে পারে। আর মন্ত্রী যদি ই-মেইল, ফেসবুক সহ আধুনিক সুবিধাদি ব্যবহার করেন তাহলে তার জন্য একটি ওই মানের সুবিধাসম্বলিত ফোন দিতে হবে।

একজন মন্ত্রীকে তার এলাকায় যেতে হবে। তিনি কিসে যাবেন? রাস্তায় ১০ ঘণ্টা ব্যয় করার মতো সময় তার পাওয়ার কথা নয়। ফলে তিনি বিমানে যাবেন। তবে এমন যদি হয়, তিনি গাড়িতে বসেও ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন ব্যবহার করে অফিস করতে পারবেন তাহলে তিনি গাড়িতেও যেতে পারেন।

তার বাড়িতে কি ধরনের আসবাবপত্র ব্যবহৃত হবে? এগুলো খুব দামী কিছু হওয়ার দরকার নেই। এগুলো কার্যপোযোগী হতে হবে। যেমন, তিনি যেহেতু রাষ্ট্রের ফুলটাইম নীতিনির্ধারক সেকারণে তার বাসায়ও বিভিন্ন পর্যায়ের মানুষের আগমন হতে পারে। ফলে, তাদের বসার মতো ব্যবস্থা থাকা আবশ্যক।

একজন মন্ত্রীর বাসায় অতিথি আপ্যায়ন করার জন্য চা, চিনি ইত্যাদি থাকা আবশ্যক। তাকে যদি মাসের বাজার কিংবা চা, চিনির খরচ নিয়ে চিন্তা করতে হয় তাহলে তার মূল দায়িত্ব ব্যাহত হতে পারে। ফলে, তার আপ্যায়ন ভাতা ওই পরিমাণ হওয়া দরকার। সকল মন্ত্রীর সমান ধরনের আপ্যায়ন ভাতা নাও দরকার হতে পারে। এটি চাহিদামাফিক হতে পারে।

মন্ত্রী মানে একটি দায়িত্বশীল পদ। এই পদে যারা থাকবেন তারা কোন ধরনের মিথ্যা বিবৃতি দেবেন সেটা চিন্তায়ও আনা যাবে না। ফলে, তিনি তার দায়িত্ব সুষ্ঠুভাবে পালনের জন্য যে ধরনের ন্যূনতম সুবিধাদি রাষ্ষ্ট্রের কাছে চাইবেন সেটা তাকে বিনা প্রশ্নে দিতে হবে।

একজন মন্ত্রী যখন এমন হবেন তখন তিনি হলেন ভালো মানুষ।

আমি মন্ত্রীর উদাহরণ দিলাম। এবং খুব সংক্ষেপে বিষয়টি বললাম। এটাকে এখন বাড়াতে থাকুন। শুধু একটা কথা মনে রাখুন। রাষ্ট্রের দায়িত্ব পালনের জন্য যা দরকার তাই নিচ্ছে কতোজন?

যে মানুষ ঘুষ খায় না। সেও ভালো মানুষ। যে মানুষ অন্যের অধিকার হরণ করে না সেও ভালো মানুষ।

ভাবছেন হয়তো হঠাৎ করে আমি ভালো মানুষের প্রসঙ্গ আনছি কেন?

আজকে সকালে আমি তিনজন ভালো মানুষকে পেয়েছিলাম। তারা ভালো মানুষ বলেই অন্য আরো অনেক ভালো মানুষের গল্প করেছিলেন। তারমানে হলো, যারা অন্যের ভালোত্বকে তুলে ধরতে পারে তারাও ভালো মানুষ। আগামী কয়েকমাসের মধ্যে আমি অনেক কয়জন ভালো মানুষের গল্প আপনাদের সামনে উপস্থাপন করব। আপনারা জেনে অবাক হবেন সমাজে অনেক ভালো মানুষ আছেন। তারা বিচ্ছিন্নভাবে কাজ করছেন বলে দেশের ও সমাজের সত্যিকারের পরিবর্তন হচ্ছে না। তাহলে কি দরকার? এটা আপনারাই না হয় ভাবুন।

আমি বেশ লক্ষ্য করি আমাদের দেশে যাদের বয়স ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে তারা বিশ্বাসই করতে পারে না যে, সমাজে ভালো মানুষ আছেন। যতো দিন যাচ্ছে তাদের এই অবিশ্বাস পোক্ত হচ্ছে। তারা মনে করছে, একজন মন্ত্রী মানেই অনেক দুর্নীতি। তারা মনে করে একজন মন্ত্রী মানেই কয়েক কোটি টাকা মূল্যের গাড়ি, কয়েকটি প্লট, কয়েক কোটি টাকার ব্যাংক ব্যালেন্স, অঢেল সম্পদ আর সীমাহীন ক্ষমতা এবং ক্ষমতার অপব্যবহার।

তরুণদের সামনে এই যে প্রতিচ্ছবি সেই ছবিটা যে ঠিক নয় সেটি বলা দরকার। সরকারি সচিব মানে দুর্নীতির আখড়া নয় এই কথাটি তাদেরকে জানানো দরকার। পুলিশ মানেই ঘুষ নয় এই কথাটি তাদের সামনে তুলে ধরা দরকার। সেসঙ্গে তাদেরকে জানানো দরকার সাফল্য মানে অবৈধ আয়ে গাড়ি বাড়ি করা নয়। বিদেশ ঘুরে বেড়ানো নয়। অন্যের অধিকার হরণ করা নয়। কিংবা যখন তখন ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে বেড়ানো নয়। তাদেরকে আরো জানানো দরকার সৎভাবেও শত শত কোটি টাকার মালিক হওয়া যায়।

মোদ্দা কথা সৎ আর অসৎ এর পার্থক্যগুলো সুস্পষ্ট করা দরকার। সেজন্য দরকার ভালো মানুষকে পরিচয় করিয়ে দেওয়া। দেশের ৩ কোটি তরুণ ভোটারের মনোবল ভেঙ্গে গেছে। তারা মনে করছে দেশটা আর আগাবে না। কথাটি কিন্তু ঠিক নয়। এই দেশ মুক্তিযোদ্ধাদের দেশ। চোরবাটপারের দেশ নয়। তরুণদের নিজেদেরকেই সেটা প্রমাণ করতে হবে।

Advertisements

4 thoughts on “আপনার চেনা ভালো মানুষকে পরিচয় করিয়ে দিন

  1. i liked the previous set up of your blog…and cant agree with the facts in this article…..i used to think a lot about what is the main problem of us….i believe we have only 2-3 major problems and from these all other problems are emerging…..poverty is not a problm…illiteracy is not a prblm as well as it is a consequence of poverty….i think our problm is our mindset….our failure to identify priorities in personal, social professional an every other aspetcs of life

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s