এক বছরে ৪১ লাখ ৩০ হাজার ৯৬০ টাকা


আজকের জুমার নামাজ নতুন চিন্তার খোরাক জুগিয়েছে। মসজিদটা খুব বেশি বড় না। সবমিলিয়ে ৩০০ লোক একসঙ্গে নামাজ পড়তে পারে। সব ওয়াক্তে এতো লোক হয় না। জুমার নামাজে মসজিদ ভর্তি থাকে। আজকে হিসেব দেওয়া হলো গতবছর এই মসজিদ নামাজীদের কাছ থেকে অনুদান পেয়েছে সর্বমোট ৪১ লাখ ৩০ হাজার ৯৬০ টাকা। তারমানে দিনে টাকা ‍উঠেছে ১১ হাজার ৩১৭ টাকা সত্তর পয়সা। সংখ্যাটা বিষ্ময়কর!

এই মসজিদে যারা নামাজ পড়তে আসে কিংবা আশেপাশে বসবাস করে তারা ধনী নয়। তারপরও তাদের কাছ থেকে এই পরিমাণ টাকা উঠেছে। সেই টাকায় মসজিদের সম্প্রসারণের কাজ চলছে। কোন খাতে কতো টাকা খরচ করা হচ্ছে সেই হিসেবও দেওয়া হলো। বলা হলো ২০০ ব্যাগ সিমেন্ট কম পড়ায় আগামীকাল ছাদ ঢালাই দেওয়া যাচ্ছে না। ফলে বাড়তি অর্থের জন্য আবেদন জানানো হলো। কেউ ইচ্ছে করলে সিমেন্টও দিতে পারবে।

সরকারের কাজ কি? জনগণের কাছ থেকে কর আদায় করা। এবং সেই করের টাকা জনগণের কল্যাণে ব্যয় করা।

কিন্তু বাস্তবে কি হচ্ছে? জনগণ কর দেয় না। কারণ সরকারের কর্মকাণ্ড স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক নয়। সরকারও করের অর্থ পেতে অতোটা আগ্রহী নয়। বরং বিদেশী দাতা সংস্থার কাছ থেকে অর্থ এনে লুটপাটে বেশি আগ্রহী। কারণ জনগণের কাছ থেকে কর নিলে জবাবদিহি করতে হবে। জনগণ সচেতন হবে। অন্যদিকে কর না দিতে হলে জনগণের মধ্যে জবাবদিহি করার মনোভাব তৈরি হবে না। সরকার সেই ফাঁকে নিজেদের মতো করে দেশ চালাতে পারবে।

সরকারে যারা যান তারা মসজিদ কমিটির লোকের চেয়েও খারাপ।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s