মেয়েটি আত্মহত্যা করল


মন খারাপ করা একটা দিন। সকালে সাভারের গণহত্যার ঘটনা জানলাম। বাসায় ফিরেই শুনলাম আমার মেয়ের বন্ধুর আত্মহত্যার খবর। খবরটা বৌ জানাল। কাছেই মেয়ে বসা। আমি মেয়ের দিকে তাকালাম। আমার মেয়েটা হয়েছে ওর মায়ের মতো। তীব্র শোককে শুষে নিতে পারে। ব্লটিং পেপার।কিন্তু বাবার চোখ এড়াবে কিভাবে। আমি ঠিকই বুঝতে পারি ওর মধ্যেকার অস্থিরতা আর অক্ষমতার বিষয়টি। এ এক অবাক সময়। ঘড়ির কাটা কয়েক মুহুর্তের জন্য যেন থেমে গেলো। মনে হলো আমি যদি মেয়ের দুঃখকষ্টকে শুষে নিতে পারতাম। মৃত্যুর কারণ জানলাম প্রেমে ব্যর্থতা।

তখন স্কুলে পড়ি। একদিন শুনলাম আমার প্রিয় বন্ধু ও সহপাঠীর ভাই গলায় ফাঁস দিয়েছে আখড়াবাড়ির গাছের ডালে। মৃত্যুর কারণ ছিল প্রেমে ব্যর্থতা। দীর্ঘ অনেক বছর বাদে নিজের দেখা মানুষের আবারও একই কারণে মৃত্যুর খবরটা আমাকে হতবাক করেছে। মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে। কারণ মেয়েটাকে যে আমি আমার মেয়ের সঙ্গে ছোটবেলা থেকে দেখেছি। স্কুল স্পোর্টসে ওর সঙ্গে দৌড়ে পেরে উঠার সাধ্যি ছিল কার। সেই মেয়েই কিনা জীবনের দৌড়ে এভাবে হেরে গেলো! নাকি মরণের দৌড়ে অন্যকে হারিয়ে দিয়ে গেলো। এই মেয়েকে যে প্রতারিত করেছে মরার কথা তো তার। স্কুলের দৌড়ে সবসময় ফার্স্ট হওয়া মেয়েটি কেন জীবনের দৌড়ে এই ছাড় দিলো? কেন? কেন?

পত্রিকার পাতায় হরহামেশা আত্মহত্যার খবর প্রকাশিত হয়। প্রেমে ব্যর্থতা কিংবা পরীক্ষায় খারাপ করার কারণে কিশোর বয়সীরা আত্মহত্যা করে। কেন তারা আত্মহত্যা করে আমার খুব জানার ইচ্ছে হয়। কিন্তু কোন মৃত মানুষের কাছে তো প্রশ্ন করার সুযোগ নেই।

প্রেমে ব্যর্থতা মানে তো কেউ একজন আরেকজনকে ঠকিয়েছে। প্রেমে করে ভালোবাসার মানুষকে ঠকানোর ঘটনা অনেক পুরনো। হয়তো সৃষ্টির আদি থেকেই আছে। আমাদের দেশেও এটা নিশ্চয়ই নতুন কোন ঘটনা নয়। তবুও মানুষ মানতে পারে না। নিজের জীবন দিয়ে আরেকবার সেটাই প্রমাণ করে গেলো মেয়েটি।

আমি মেয়েটির বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করি। আর অভিশাপ দেই সেই ছেলেকে যে এই মেয়েকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s