মন্ত্রী উপদেষ্টা হবেন যারা


মন্ত্রী পরিষদ গঠিত হতে যাচ্ছে। কারা হবেন মন্ত্রী সেনিয়ে জল্পনা কল্পনা চলছে। মন্ত্রী নিয়োগ দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি প্রয়োজন অনুযায়ী পূর্ণমন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী নিযোগ দেবেন। মূলত এমপিদের মধ্য থেকে মন্ত্রীদের নিয়োগ দেওয়া হবে। এছাড়াও টেকনোক্রেট কোটায়ও মন্ত্রী হতে পারে। সেসঙ্গে বরাবরের মতো উপদেষ্টাও নিয়োগ পেতে যাচ্ছেন কেউ কেউ এমনটাই শোনা যাচ্ছে। সবমিলিয়ে ৫০ থেকে ৬০ জন নিয়োগ পেতে পারেন। এই দেশের নাগরিক হিসেবে বলতে পারি মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও উপদেষ্টাদের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গেলেও আপত্তি নেই। নাগরিক হিসেবে আমার প্রত্যাশার কথা বলতে এই লেখা। আমি প্রত্যাশা করি মাননীয় প্রধামন্ত্রী এমন ব্যক্তিদের মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেবেন যারা-

১. ১৯৭১ সালে অস্ত্র হাতে যুদ্ধ করেছেন (যাদের বয়স ১৮+ ছিল); নিয়োগপ্রাপ্তদের জীবনীতে এ বিষয়ে বিস্তারিত প্রকাশ করার দাবী জানাই। যেমন, কোন সেক্টরে যুদ্ধ করেছেন। কোথায় কার অধীনে ট্রেনিং নিয়েছেন। কতো তারিখে যুদ্ধে যোগ দিয়েছেন। ২৫ মার্চ কোথায় ছিলেন। ইত্যাদি।

২. তাদের সম্পদের হিসাব শুধু নয় সেই সম্পদ অর্জনের পন্থাগুলো বিস্তারিত জনগণকে জানাতে প্রস্তুত আছেন।

৩. যাদের বিরুদ্ধে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সম্পদ জোরপূর্বক কিংবা কৌশলপূর্বক অর্জনের কোন কালিমা নেই।

৪. যাদের বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নামে ঘুষ গ্রহণের কোন রেকর্ড নেই।

৫. যখন ক্ষমতায় থাকেন না তখনও কোন পেশায় নিয়োজিত থাকার মাধ্যমে রুটি রুজি করে থাকেন।

৬. যাদের বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের কোন রেকর্ড নেই।

৭. এলাকায় মারামারি, হানাহানিতে কোনভাবেই যুক্ত নন।

৮. মাদক ব্যবসা করেন না। এবং মাদক ব্যবসাকে প্রশয় দেন না।

৯. যারা জানেন ও মানেন যে, স্থানীয় সরকারের কাজ করা তাদের দায়িত্ব কিংবা কর্তব্য নয়। সেটা এলাকার মেম্বার ও চেয়ারম্যানদের কাজ।

১০. যারা স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের স্বাভাবিক কাজকর্মে নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করবেন না।

১১. যারা কোন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের স্বাভাবিক কর্মপ্রবাহে বাধা তৈরি করবেন না।

১২. যারা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাজে হস্তক্ষেপ করবেন না।

১৩. যারা বিচার বিভাগে নিজেদের প্রভাব প্রতিপত্তি খাটাবেন না।

১৪. যারা টেন্ডার চাদাবাজি কিংবা এই জাতীয় কাজে হস্তক্ষেপ করবেন না।

১৫. যারা নিয়মিতভাবে সংসদে যাবেন।

১৬. যারা আইন প্রণয়নের লক্ষ্যে লেখাপড়া করবেন।

১৭. যারা দেশের মানুষকে দেশের মালিক মনে করবেন।

এবং যারা দেশের আইনের প্র্রতি শ্রদ্ধাশীল হবেন।

যদি উপরে উল্লেখিত যোগ্যতাসম্পন্ন মানুষ সংসদ সদস্যদের মধ্যে পর্যাপ্ত সংখ্যক না পাওয়া যায় সেটা প্রধানমন্ত্রীর জন্য যেমন দুর্ভাগ্যের তেমনি দুর্ভাগ্যের এই জাতির। আর সেই দুর্ভাগ্যের জন্য যারা দায়ী তাদেরকে ইতিহাস কখনো ক্ষমা করবে না। যাই হোক। প্রধানমন্ত্রী ও ভবিষ্যৎ মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও উপদেষ্টাদের অভিনন্দন।

সবাই ভালো থাকুন। দেশ ভালো থাকুক। স্বাধীনতা অর্থবহ হোক।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s