শস্তা জনপ্রিয়তার বাংলাদেশী স্টাইল


অপেক্ষার যেন শেষ নেই!
অপেক্ষার যেন শেষ নেই!

কনটেন্ট নাই কিন্তু ওয়াই ফাই দিয়ে ভরে দেয়ার পরিকল্পনা চলছে দেশে। এটা হলো শস্তা জনপ্রিয়তার বাংলাদেশী স্টাইল। যারা বলবেন যে, ওয়াই ফাই হলে কনটেন্ট হবে তারা আসলেই জিনিয়াস।

এরকম জিনিয়াস আগেও দেখেছি। ১৯৯৭ সালের পর থেকেই এরকম জিনিয়াসদের মিডিয়াতে আমদানী হওয়া শুরু হয়। তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক পত্রিকাগুলো এবং কিছু কিছু দৈনিক পত্রিকা এদেরকে স্পেস দিতে শুরু করে। এসব অবার্চীনের দল তখন কেন বিনে পয়সায় ১৯৯১ সালে সাবমেরিন ক্যাবল নেয়া হলো না এবং সাবমেরিন ক্যাবল এলে দেশে কি কি হবে সেনিয়ে বিস্তার ফিরিস্তি দেয়া হয়। ওই সময়ে সফটওয়্যার রপ্তানি করে বছরে দুই বিলিয়ন ডলার আয় করার গল্প যে কতোবার করা হয়েছে সেটার সাক্ষী তখনকার পত্রিকাগুলো। যাই হোক, তথ্য প্রযুক্তি খাতে কি হচ্ছে না হচ্ছে সেটা প্রায় ২৪ বছর ধরে অনেক দেখলাম। এখন ওই সব জিনিয়াসদের সঙ্গে এই বুড়ো কথা বলতে ভয় পায়!

তথ্য প্রযু্ক্তি ক্ষেত্রে ২৩ বছর ধরে সার্ক দেশের অগ্রগতিতে বাংলাদেশের পারফরমেন্স দেখলাম তো। ১৯৯১ সালে মোবাইল ফোন যখন এলো তখন সার্কে আমরাই প্রথম। ভারতে মোবাইল ফোন চালু হলো আমাদের ৪ বছর পর। ডাটা এন্ট্রি আর সফটওয়্যার বাজারে আমাদের ভালো করার তখন অমিত সম্ভাবনা। শিল্প বিপ্লব না পেলেও তখনকার আমরা ভাবতাম প্রযুক্তি বিপ্লবে আমরা অন্যদের সঙ্গে প্রায় সমানতালে আগানোর মতো পদক্ষেপ নেব। কিন্তু নীতি নির্ধারকরা কিভাবে ট্রেন মিস করতে হয় এবং ট্রেনে জনগণকে না চড়িয়ে কিভাবে নিজের আখের গোছাতে হয় সেটা জানে বলেই নেতা নেত্রীদের ভিওআইপি হলো, পকেট ভরল, আরো কতো কি। জনগণের মুখে কাঠি লজেন্সই থাকল। যাই হোক। বলে কি লাভ। এখন তো যাদের দ্রুত গতির ইন্টারনেট দরকার, বিশেষ করে ঢাকার বাইরে তারা চেয়েও পাচ্ছে না। এদিকে নাকি ইউনিয়নগুলোতে কি সব কেন্দ্র দিয়ে ভরে গেছে। বিদেশ ফেরত স্বপ্ন দেখাতে ওস্তাদ হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালারা কাড়ি কাড়ি টাকা কামাইয়ের মেশিন বসিয়েছে নিজেদের কোচড়ে। আর জনগণকে বঙ্গোপসাগরে কিংবা নদ নদী খালে বিলে ডুবাচ্ছে।

এভাবে সরকার আসে। সরকার যায়। তথ্য প্রযুক্তি খাতে তোঘলকি কারবার চলে। জনগণ মাথা কুটতে থাকে। কুটতেই থাকে। আর একদল শস্তা জনপ্রিয়তার জন্য জনগণকে ধোকা দিতে থাকে। দিতেই থাকে। পাশাপাশি ধোকাবাজরা দেশের অর্থ লুটতে থাকে। লুটতেই থাকে।

খেপুপাড়া লঞ্চ ঘাটের পল্টুনের ছোট ছোট পিলারগুলো মিস করছি!!!

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s