ভয়ের শহরে বসবাস


Fea৪৩ বছর ধরে এই শহরে বাস করছি। রাজনীতির অনেক কঠিন সময়ে রাজপথে থেকেছি।

১৯৯০ সালে এরশাদের পতনের সময় রাত বিরাতে বাসায় ফিরতে হতো। কারফিউর মধ্যেও বের হতাম। পকেটে পাস থাকতো। অনেকদিন থামতে হয়েছে। বিডিআর (বর্তমানে বিজিবি) চেক করেছে। ফকিরাপুল, জোনাকী সিনেমা হল, কাকরাইল, শাহবাগ কিংবা মালিবাগ, মগবাজার, বাংলামটর, ফার্মগেটের নির্জন রাস্তায় চলতে ভয় লাগেনি। মনে হয়নি কেউ গুলি করবে কিংবা আগুনে পুড়িয়ে দেবে।

১৯৯৩ সালে নয় মাস রাত দু’টোর দিকে বাসায় ফিরতাম প্রতি শনিবার। ফকিরাপুল থেকে পশ্চিম রাজাবাজার। বাসায় ফেরার পথে হলিডে প্রিন্টার্সে ৩২ পৃষ্ঠার সেলোফেন ও ডামি নামিয়ে দিয়ে রাতের ঢাকা দেখতে দেখতে বাসায় ফিরতাম। ভয় লাগতো না। টেনশনও হতো না।

২০০৪ সালে প্রায় ৯/১০ মাস প্রতি বৃহস্পতিবার রাত ১২/১টায় বিটিভিতে এডিটিং সেরে পল্লবীর বাসায় ফিরেছি ভয় ডর ছাড়াই।

আর আজকে? মাত্র রাত সোয়া এগারোটায় বাংলামোটর থেকে পল্লবীতে ভয় নিয়ে ফিরেছি। বাসে উঠার পর থেকেই মনে হলো এখনই আক্রান্ত হবো না তো। গত কয়েকদিন ধরেই এই ভয়টা আমাকে পেয়ে বসেছে। সকালে যখন অফিসে রওয়ানা হই রাস্তায় যতোক্ষণ থাকি খুবই ভয় নিয়ে এদিক ওদিক দেখি। ভয়টা হলো আগুন দেয়ার ভয়।

৪৩ বছর পর এমন এক আতঙ্কের মধ্যে বসবাস করতে বড় অস্বস্তি হচ্ছে।

তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাতিল এবং পরবর্তীতে একটি অগ্রহণযোগ্য নির্বাচন কিভাবে গণতান্ত্রিক একটি দেশের মধ্যে অরাজকতার জন্ম দিলো, নির্ভয়ে চলতাম যে শহরে সেই শহরে আজ আর নির্ভয়ে পথ চলতে পারছি না। ভয় গ্রাস করে নিয়েছে। আজকে বাসটি যেখানেই থেমেছে মনে হয়েছে এই বুঝি কিছু একটা হলো। বাসে কেউ উঠলেই মনে হচ্ছিল এই লোক আগুন ধরিয়ে দিয়ে নেমে পড়বে না তো?

বাসায় ফিরে খাওয়া দাওয়া সেরে টেলিভিশন খুলে দেখি মাতুয়াইলে বাসে আগুন দেয়ার কারণে ২৯ যাত্রী দগ্ধ হয়েছে। কি নৃশংসতা। মানুষ এতোটা সহিংস কী করে হয়। ভাবলাম এমন নৃশংসতার শিকার যারা হচ্ছে তারা তো আমারই তো মানুষ। তারা তো আমার মতোই এই শহরের বাসিন্দা। তারা তো এই দেশের মানুষ। তাদেরও তো সুন্দর করে বাঁচার অধিকার আছে।

যে বা যারা বাসে আগুন দিচ্ছে তাদের কঠোর শাস্তি দাবী করছি। এমন শাস্তি হওয়া দরকার যেন দ্বিতীয় কেউ একই ধরনের কাজ করার সাহস না পায়। অপরাধীদের শাস্তি না হওয়ার যে সংস্কৃতি এই দেশে গড়ে উঠেছে সেই সংস্কৃতির অবসান হওয়া দরকার। দেশের কল্যাণে ও দেশের মানুষের কল্যাণে অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া দরকার। আজকে এখনই জনমানুষ বিরোধী সকল কর্মকান্ড বন্ধ করতে বিচার ও শাস্তি হওয়া দরকা্র।

রাজনৈতিক দলগুলোর শুভ বুদ্ধির উদয় হোক। জনমানুষের জীবনে স্বস্তি ফিরুক।

পল্লবী।। ঢাকা।।
২৪ জানুয়ারি ২০১৫

Advertisements

2 thoughts on “ভয়ের শহরে বসবাস

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s