বাংলাদেশের মানুষের জীবনে স্বস্তি কম


“ওয়াও!” সৌন্দর্য্য বাংলাদেশে অনেক আছে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য বলতে গেলে বাংলাদেশে ভরা। বাংলাদেশী মানুষের দেখার চোখও আছে। কিন্তু কমপক্ষে তিনটা জিনিস বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষকে সবসময় কাবু করে রাখে, ফলে হাতের কাছের সৌন্দয‍র্্যও দেখার মতো মানসিক অবস্থা বেশিরভাগ বাংলাদেশীর থাকে না।

১. বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষ এক ধরনের মানসিক দৌড়ের মধ্যে সবসময় আটকে থাকে। মানসিক টানাপোড়েন ঘুমাতে যাওয়ার আগে এবং ঘুম থেকে উঠে চলতে থাকে। আর এই ধরনের মানসিক টানাপোড়েন শহর এলাকায় বসবাসকারী মানুষের মধ্যে বেশি।

২. বাংলাদেশের সাধারণ মানুষ, যাদের সংখ্যাই বেশি, তারা এতোটাই কর্মক্লান্ত থাকে যে তাদের সৌন্দর্য্য দেখার ও প্রশংসা করার ইচ্ছেটাও মরে যায়। তার সঙ্গে ঢাকা ও বড় বড় শহরের মানুষের জীবনে যুক্ত আছে যানজট এবং বর্ষার দিনে জলজট।

৩. বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের জীবনে অনিশ্চয়তার পরিমাণটাই বেশি। ছোটখাটো বিষয় থেকে শুরু করে বড় বড় বিষয় সবটাতেই অনিশ্চয়তা বাংলাদেশের মানুষের জীবনকে দুর্বিষহ করে রাখে। ফলে এক ধরনের শূণ্য দৃষ্টিতে পথ চলা, জীবনযাপন করা মানুষের সংখ্যাই এদেশে বেশি।

এই অবস্থায় প্রাকৃতিক সৌন্দয‍র্্য উপভোগ করার মতো মন মরে যাচ্ছে বাংলাদেশীদের। কিংবা মরে গেছে।

একটি উদ্বেগহীন কর্মময় উল্লাস ও আনন্দময় জীবন যে দেশের নাগরিকদের নেই সেই দেশ আর যাই হোক “প্রিয় দেশ” হতে পারে না। সেই দেশের মানুষ সকাল বিকেল নিজের কপালকে দোষ দেবে না তো কী করবে। আর সেকারণেই এই দেশের মানুষ নৌকায় ঝুঁকি নিয়ে সাগর পাড়ি দেয়, বিদেশে যেতে দালালদের খপ্পড়ে পড়ে, মাদকাসক্ত হয়, এবং আরো অনেক কিছু।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s