বিয়ের আগের দিনগুলো-১


প্রাককথন: কমপিউটারের ফাইল ম্যানেজমেন্ট অনেক কঠিন কাজ। গত ২০ বছরে যতো ফাইল জমা হয়েছে সেগুলোর ব্যবস্থাপনা করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। বিভিন্ন সময়ে ফাইল কপি করে এখানে ওখানে রাখার কারণে প্যাচ লেগে গেছে। গত কয়েকমাস ধরে সেই প্যাচ ছোটাচ্ছি। কিন্তু ছুটছেই না। এদিকে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ফাইল তৈরি হচ্ছে। সবমিলিয়ে এক ধরনের লেজেগোবর অবস্থা। জগাখিচুড়ি এই…

অসভ্য ছেলেগুলো ও তাদের পরিবার


প্রথম দিন ফোনে কথা বলেই মেয়েটি প্রেমে পড়েছিল। বাসায় জানিয়ে দিয়েছিল- বিয়ে নিয়ে আগাতে পারে। সবাই কমবেশি অবাক হয়েছিল। বেশি অবাক হয়েছিল মেয়েটির বড় বোন। নিজের মনের ভাব লুকাতে পারেনি। হয়তো চায়ওনি। সোজা জিজ্ঞেস করেছিল, “অন্তরা তুই সত্যিই বলছিস ওই ছেলেটিকে বিয়ে করবি?” অন্তরা নামের মেয়েটি অবাক গলায় বলেছিল- “হ্যা, আপু। কোন সমস্যা?” বড় বোন…

পাহাড়ে তিন দিন: “ভালো থাকুন মা, বাংলাদেশে!”


১ এপ্রিল ২০১২ গন্তব্য: রাঙামাটি সঙ্গী: ড. ভ্যালেরি এমব্লেন, টিম লিডার, শেয়ার টিএ এয়ারপোর্টের টার্মিনালে ঢুকেই ভ্যালেরিকে খুঁজলাম। না আসেনি। খুঁজতে গিয়ে পরিচিত একজনকে দেখলাম। একবার মনে হলো গিয়ে কথা বলি। কিন্তু তিনি তার পাশের ভদ্রলোকের সঙ্গে যেভাবে জমিয়ে কথা বলছেন, মনে হলো এই সাত সকালে অনেক বছর আগের পরিচয়ের সূত্র ধরে কথা বলাটা ঠিক…

এবং সেটা যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব


এক. ঊর্ধ্বপানে ছুটে চলা বাংলাদেশে অন্যতম প্রধান সমস্যা বিশ্বাস হারানো। অন্যভাবে বলা যায় মেনে নেওয়া। প্রতিদিন আমরা কতো কিছু মেনে নিচ্ছি। সেই তালিকা কোনদিন তৈরি করলে আমরা নিজেরাই হয়তো বিষ্মিত হবো।   দুই. যানজটের কারণে গত ১০ বছরে ঢাকা শহরে আমার চলাচল অনেকটা সীমিত হয়ে পড়েছে। গত ৫ বছর ধরে আমার চলাচলের একটি নির্দিষ্ট এলাকা…

সোনায় বাঁধানো কবর


এক. কোব্বাত আলী সারাটা জীবন সততার সঙ্গে কাটিয়েছে। কেউ বলতে পারবে না এক পয়সা ঘুষ খেয়েছে। অথচ কতোই না সুযোগ ছিল ঘুষ খাওয়ার। এনিয়ে তাকে কম গঞ্জনা সহ্য করতে হয়নি, বাড়িতে ও বন্ধু মহলে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কোব্বাত আলী ঘুষ না খেয়েই তার চাকরি জীবন শেষ করতে পেরেছে। একটি সফল চাকরি জীবন ছিল কোব্বাত আলীর।…

বাংলাদেশের সত্‌ ও কর্মঠ তরুণ-তরুণীরা কষ্টে আছে


আমার পরিচিতদের কেউ কেউ বিভিন্ন কাজে আমার পরামর্শ চায়। আমিও সাধ্যমতো তাদেরকে বুদ্ধি পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করি। আজকে একজন আমাকে ফোন দিয়েছিল। ৩১ বছর বয়সী এক তরুণ। তার স্ত্রী ও এক সন্তান আছে। তার ছোট চাচা অনেক বছর ধরে মালয়েশিয়া থাকে। সম্প্রতি ছোট চাচার কোম্পানি আরো ৩০০ লোক নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আলোচ্য তরুণও যেতে চায়।…

ভবিষ্যত দেখার সুযোগ থাকলে বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধের ইতিহাস ভিন্ন হতো


এক. বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের পটভূমি রচিত হয়েছিল ১৯৬৬ সালে বাংলাদেশের অবিসংবাদিত নেতা শেখ মুজিবুর রহমানের ছয় দফা দাবীর মধ্য দিয়ে। ছয় দফা দাবী প্রসঙ্গে বাংলাপিডিয়াতে বলা হয়েছে- “তাসখন্দ চুক্তির মাধ্যমে ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধের অবসানের পর পূর্ব পাকিস্তানের নিরাপত্তার ব্যাপারে কেন্দ্রীয় সরকারের চরম অবহেলা ও ঔদাসীন্যের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ প্রধান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সোচ্চার…